হারিরির মাকামাত
ইতিহাস

হারিরির মাকামাত বলতে কি বোঝ?

মুসলিম শিল্পকলার ইতিহাসে মেসোপটেমীয় চিত্রকলায় প্রথম হারিরির মাকামাত চিত্রায়িত হয়। মুসলিম চিত্র শিল্পীদের দক্ষ তুলির স্পর্শে ইহা প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে। তাই মুসলিম শিল্পকলার বিকাশে হারিরির মাকামাতের ভূমিকা অপরিসীম।

আদি হারিরির মাকামাত

আব্বাসীয় যুগের মধ্যভাগে আরবি সাহিত্যে আবির্ভূত এক ধরনের প্রবন্ধ হচ্ছে মাকামাত। ইহা সর্বপ্রথম লিপিবদ্ধ হয় আরবি ভাষায়। অনুপ্রাসযুক্ত এ গদ্যের উৎকৃষ্টতম ভাষা কাব্যিক ছন্দকেও অতিক্রম করার উপক্রম। গদ্য ভাষায় রচিত হলেও এতে ছিল অভাবিত পদ্যের কারুকার্য্য, যেন সোনায় সোহাগার মতই ইহা মনোরম।

আদি রচয়িতা

হারিরির মাকামাতের আদি রচয়িতা হচ্ছেন সাহিত্যিক ইবনে ফারেস। তবে মুহাম্মদ কাশেম ইবনে আলী প্রথম জীবনে রেশমের ব্যবসা করতেন বলে তাকে হারিরি নামে ডাকা হতো। পরবর্তীকালে তিনি সাহিত্য চর্চায় অংশ গ্রহণ করেন বলে তার সাহিত্য হারিরির মাকামাত নামে খুব জনপ্রিয়তা লাভ করে।

মেসোপটেমীয় চিত্রকলা

মুসলিম চিত্রকলায় মেসোপটেমীয় চিত্রশালায় প্রথম হারিরির মাকামাত চিত্রিত হয়।তাই হারিরির চিত্রাবলীতে মেসোপটেমীয় চিত্রশালার অনবদ্য বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা যায়।সেন্ট ভাস্ট গ্রন্থের সঙ্গে ডায়স্করাইডসের চিত্রাবলীর তুলনা করলে প্রতীয়মান হয় যে, এগুলো বাইজান্টাইন শিল্পধারায় খ্রিষ্টান প্রভাব থেকে মুক্ত হয়ে পারস্য শিল্পরীতির দিকে ঝুঁকে পড়েছে। এ পাণ্ডুলিপির কয়েকটি উল্লেখযোগ্য বিষয়বস্তু হচ্ছে (ক) উটের পিঠে জিয়াদ, (খ) ইউফ্রেটিসে যাত্রীবাহী একটি নৌকা, (গ) গাছের নিচে কথোপকথনরত দু’ব্যক্তি, (ঘ) ক্রীতদাসের বাজার প্রভৃতি।

মুসলিম সাহিত্য এবং চিত্রকলার ইতিহাসে হারিরির মাকামাত ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। তাই এর ঐতিহাসিক গুরুত্ব অনস্বীকার্য্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *