Lord Cromer
ইতিহাস

লর্ড ক্রোমার কে ছিলেন?

ব্রিটিশদের দ্বারা ১৮৮২ খ্রিস্টাব্দে মিশর দখল একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। স্বাধীনতা লাভের পূর্বে মিশর বিভিন্ন বিদেশি শক্তি দ্বারা শাসিত হয়ে আসছিল। এর পিছনে বেশকিছু বৈশিষ্ট্যাবলি অবশ্য দায়ী ছিল। মিশর এর জন্ম অতি প্রাচীনকালে। প্রাচীন ঐতিহ্যের অধিকারী মিশর খ্রিস্টের জন্মের ৫২৫ বছর পূর্ব থেকে শুরু করে ১৯৩৬ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত বিদেশি শাসনের অধীনে ছিল। এ দীর্ঘ সময়ে মিশর যেসব বিদেশি শক্তির অধীনে ছিল ব্রিটেন তাদের অন্যতম। ১৮৮২ খ্রিস্টাব্দের জুলাই মাসে ব্রিটেন মিশর দখল করে এবং নিজস্ব প্রতিনিধি নিয়োগ করে মিশরে শাসনকার্য্য পরিচালনা করতে থাকে। ব্রিটিশ প্রতিনিধি হিসেবে যারা মিশর শাসন করেন লর্ড ক্রোমার তাদের মধ্যে অন্যতম। তিনি ১৮৮২ হতে ১৯০৭ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত মিশরের শাসক হিসেবে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

লর্ড ক্রোমার পরিচয়ঃ লর্ড ক্রোমার প্রথম জীবনে সেনাবাহিনীতে যোগদান করে বেশ দক্ষতার পরিচয় দেন। লর্ড ডাফরিনের উত্তরাধিকারী লর্ড ক্রোমার প্রথম দিকে স্যার ইভলি বেরিং নামে পরিচিত ছিলেন। তার অর্থনৈতিক ও প্রশাসনিক দক্ষতার কারণে ব্রিটিশ সরকার ১৮৭৭ খ্রিস্টাব্দে Casse de la Della এর ইংরেজ সদস্য হিসেবে মিশরে প্রেরণ করে। লর্ড ক্রোমারের বয়স ছিল এ সময় ৩৬ বছর। ১৮৭৮ খ্রিস্টাব্দে মিশরের তদন্ত কমিশনের সদস্য ও মিশর সরকারের কন্ট্রোলার পদে উন্নীত হয়ে তিনি মিশরের অর্থনীতিকে নিজের নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। ১৮৮২ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটিশরা মিশর দখল করলে লর্ড ক্রোমার ব্রিটিশ এজেন্ট এবং কনসল জেনারেল হিসেবে মিশরে গমন করেন। এ শাসন ক্ষমতা গ্রহণ করে তিনি বিভিন্ন সংস্কার কার্যাবলি পরিচালনা করেন।

লর্ড ক্রোমার অর্থনৈতিক সমস্যায় জজরিত মিশরের আর্থসামাজিক সংস্কারের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছিলেন। কিন্তু সংস্কার পরিচালনার ক্ষেত্রে তিনি স্বৈরাচারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। যে কারণে অনেক ঐতিহাসিক তার তীব্র সমালোচনা করেছিলেন। তবুও একথা সত্য যে বিভিন্ন উন্নয়নমুখী সংস্কারের মাধ্যমে তিনি যে মিশরে ব্যাপক উন্নয়ন ঘটাতে সক্ষম হয়েছিলেন, আধুনিক মিশরের বিকাশে তা অনেকটা সহায়তা করেছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *