প্যান ইসলামবাদ কি?

প্যান ইসলামবাদ

প্যান-ইসলামি আন্দোলন তুরস্ক তথা সমগ্র মুসলিম বিশ্বের ইতিহাসে একটি উল্লেখযোগ্য অধ্যায়। বিশ শতকে ইসলামের ঐক্য এবং মুসলিম ভ্রাতৃত্ব সুসংহত করার জন্যই প্যান-ইসলামি আন্দোলন বা বিশ্ব ইসলামবাদের উন্মেষ ঘটে।

সুলতান দ্বিতীয় আব্দুল হামিদ পশ্চিমা সাম্রাজ্যবাদী ষড়যন্ত্র ও উগ্র জাতীয়তাবাদের বিরুদ্ধে প্যান-ইসলামি মতবাদের এক শক্তিশালী আন্দোলন গড়ে তোলেন। প্যান-ইসলামি আন্দোলনের সঙ্গে জামালউদ্দিন আফগানির নামও বিশেষভাবে জড়িত।

প্যান-ইসলামি মতবাদঃ

প্যান ইসলামি মতবাদ বা বিশ্ব ইসলামবাদ হলো সমগ্র মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করার আন্দোলন বা মতবাদ। মুসলমানদের একই ধর্মগ্রন্থ, তারা একই নবীর অনুসারী এবং একই পবিত্র জীবনাদর্শ বহন করে।

তাই প্যান-ইসলামি মতবাদ হচ্ছে একই খলিফা বা খেলাফতের অধীনে সমগ্র মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করার মতবাদ। ১৮৫৭-৫৮ সালে মুঘল সাম্রাজ্যের পতনের সাথে সাথে ভারতবর্ষে মুসলিম আধিপত্যের অবসান হয়। ১৮৬৮ সালে সমরকন্দ রাশিয়ার অধীনে চলে যায়। ফলে মধ্য এশিয়ায় মুসলিম প্রতিপত্তির অবসান হয়। পরবর্তীকালে ভারতবর্ষে খেলাফত আন্দোলনের সূত্রপাত হয়। অতঃপর বিশ শতকে ইসলামের বৃহত্তর ঐক্য এবং মুসলিম ভ্রাতৃত্ব সুসংহত করার জন্য বিশ্ব ইসলামবাদের ধারণা দানা বাঁধতে থাকে। প্রকৃত প্যান-ইসলাম বা বিশ্ব ইসলামবাদের ধারণা সর্বপ্রথম ১৮৭৬ সালে তুরস্কের সংবিধানে স্থান পায়।

উনিশ শতকের মধ্যভাগে প্যান-ইসলামবাদের সর্বাপেক্ষা খ্যাতিমান প্রতিভূ ছিলেন সৈয়দ জামালউদ্দিন আল আফগানি। তিনি ইসলামকে ধর্মীয় ঐক্যের দ্বারা একটি শক্তিশালী হাতিয়ার মনে করতেন।তিনি পারস্য ও তুরস্কের মধ্যে মৈত্রী স্থাপনের চেষ্টা করেন। তিনি আশা পোষণ করতেন যে, ইরানের শাহ তুরস্কের সুলতানকে খলিফা হিসেবে স্বীকৃতি দেবেন। বিনিময়ে সুলতান পারস্যের স্বাধীনতা মেনে নেবেন। মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে মুক্তি লাভের জন্য তিনি ইস্তাম্বুলে একটি মহাসম্মেলন আহ্বানের ইচ্ছা ব্যক্ত করেন। তার উদ্দেশ্য ছিল ইউরোপীয় সাম্রাজ্যবাদ নীতিকে প্রতিহত করা।

ইরানের জামালউদ্দিন আফগানি ছিলেন প্যান-ইসলামবাদের প্রবক্ত। জামালউদ্দিন আফগানির অনুসারী হিসেবে তুরস্কের সুলতান দ্বিতীয় আব্দুল হামিদ তুরস্কের প্যান-ইসলামি নীতি শুরু করেন। প্যান-ইসলামি মতবাদ মুসলিম বিশ্বের ঐক্য সুদূরকরণে এক যুগান্তকারী অধ্যায়ের সূচনা করে। প্যান-ইসলামি মতবাদ তাৎক্ষণিকভাবে ব্যর্থ হলেও এর ফলাফল ছিল অত্যন্ত সুদূরপ্রসারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.