দি গ্রেড নর্থ রোড
ইতিহাস

দি গ্রেড নর্থ রোড

নাদির শাহ আফগানিস্তানের মতো অনুন্নত দেশকে একটি আধুনিক ও প্রগতিশীল রাষ্ট্রে পরিণত করার প্রয়াস পান। সমগ্র দেশে বিদ্রোহের কালোছায়া পড়লে তা দমনের জন্য যাতায়াত ব্যবস্থার আধুনিকীকরণের প্রয়োজন পড়ে। এছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারেও সড়কের ভূমিকা অনস্বীকার্য্য। নাদির শাহের রাজত্বকালের একটি উল্লেখযোগ্য কীর্তি ‘দি গ্রেড নর্থ রোড’ নির্মাণ।

দি গ্রেড নর্থ রোডঃ

নাদির শাহের প্রশাসনিক কর্মকাণ্ডের সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য ঘটনা ছিল হিন্দুকুশ পর্বতমালার মধ্য দিয়ে একটি দীর্ঘ সড়ক নির্মাণ যা ‘দি গ্রেড নর্থ রোড’ নামে খ্যাত ছিল। ফ্রেজার টাইটলার এ সড়ক নির্মাণকে প্রশাসনিক মেধার মূল প্রতীক বলে অভিহিত করেছেন। এ রাস্তা নির্মাণের পূর্বে উত্তরাঞ্চলের বিদ্রোহী উপজাতীয়দের দমনের জন্য কান্দাহার ও হিরাত ঘুরে যেতে হতো।

উত্তরে কোনো সরাসরি রাস্তা ছিল না। এ অসুবিধার কথা চিন্তা করে এবং সমগ্র আফগানিস্তানকে একটি রাজনৈতিক কাঠামোতে আবদ্ধ করার জন্য তিনি বামিয়ানের নিকটবর্তী সিবার গিরিপথের মধ্য দিয়ে একটি সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা করেন। “উত্তর সড়ক” নামে পরিচিত এ সড়কটি কেবলমাত্র প্রশাসনিক দক্ষতা ও একাগ্রতা এবং প্রকৌশলীদের নৈপুণ্যের প্রতীকই ছিল না। বরং এটি উত্তরাঞ্চলে তুর্কিস্তান ও আমুর দরিয়া পযর্ন্ত যাতায়াতের পথ সুগম করে। দাবা-ই-শিকারি গিরিশৃঙ্গ কেটে এ পথ নির্মাণ শেষ হয় ১৯৩৩ সালে বিশেষ করে নাদির শাহের মৃত্যুর কয়েক মাস পূর্বে।

নাদির শাহের পূর্ববর্তী শাসক আমানুল্লাহ এ গিরিপথ নির্মাণের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। রাজনৈতিক এবং প্রশাসনিক প্রয়োজনে নাদির শাহ সর্বপ্রথম আমুর দরিয়ার সাথে সিন্ধু উপত্যকার সড়কযোগে সংযোগ স্থাপনে কৃতিত্ব অর্জন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *