কালিলা ওয়াদিমনা কি?

কালিলা ওয়াদিমনা

মুসলিম চিত্রকলার ইতিহাসে মেসোপটেমীয় চিত্রকলায় সর্বপ্রথম চিত্রায়িত গ্রন্থের নাম কালিলা ওয়াদিমনা। এ পাণ্ডুলিপি পরবর্তীকালে তৈমুরীয় ও ইলখানী আমলে চিত্রায়িত হয়।

পাণ্ডুলিপি কাহিনী

কালিলা ওয়াদিমনা কাহিনীগুলো মূলত ভারতীয় উপমহাদেশে সংস্কৃত ভাষায় হিতোপদেশ মূলক কাহিনী। কালিলা ওয়াদিমনা দু’টি শৃগালের নাম। এ কাহিনীর আসল উদ্দেশ্য হল গল্পচ্ছলে উপদেশ দেয়া। হিন্দুস্থানের ব্রাক্ষ্মণ বিদপাই রচিত কালিলা ওয়াদিমনা পারস্য হয়ে আরব ভূ-খণ্ডে প্রবেশ করে। আব্বাসীয় আমলে ইবনে মুকাফফা একে আরবিতে অনুবাদ করেন।

চিত্রায়ন

মুহাম্মদ ইবন হাসান আল বায়-সুনগুরী ১৪৩০ খ্রিষ্টাব্দে কালিলা ওয়া দিমনার যে পাণ্ডুলিপি সুলতান বায়সুনগুর মীর্জার জন্য লিপিবদ্ধ করেন তা বর্তমানে তোপকাপু প্রাসাদে সংরক্ষিত আছে। আগা ওগলু এর বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে বলেন যে, এতে সর্বমোট পঁচিশটি মিনিয়েচার রয়েছে এবং শিল্পগত বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে এগুলো হিরাত একাডেমীর গুলিস্তান কালিলার সমকক্ষ।

চিত্রাবলীগুলো ছিল নিম্নরূপ

  • ১. দু’ পৃষ্ঠাব্যাপী নামপত্রে বায়সুনগুর মীর্জার প্রমোদ পার্টি অপূর্ব প্রাকৃতিক দৃশ্যের পটভূমিতে অঙ্কিত হয়েছে।
  • ২. দু’টি রাজহাস কাঠির সাহায্যে একটি কচ্ছপকে আকাশে উড়তে সাহায্য করছে।
  • ৩. ষাঁড়কে বধরত সিংহ।
  • ৪. পেঁচার দল এবং একটি কাক
  • ৫. দম্পতির শয্যাগৃহে একটি চোর ধৃত ও প্রহৃত।

মুসলিম চিত্রকলার ইতিহাসে কালিলা ওয়াদিমনা একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। এই কাহিনীগুলো আব্বাসীয় যুগে জন সমাজের মধ্যে অদ্ভূত জনপ্রিয়তা অর্জন করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.