উপগ্রহ কী?

images 27

উপগ্রহ হচ্ছে এমন একটি জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক বস্তু যার নিজস্ব কোনো তাপ বা আলো নেই। এরা সাধারণত নক্ষত্রের আলোতে আলোকিত হয়। এক কথায় বলতে গেলে, মহাকাশে যে বস্তু এর নিজস্ব সৌরজগতের নিজস্ব নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে নির্দিষ্ট কক্ষপথে গ্রহের আবর্তনের সাথে আবর্তিত হয় তাকে উপগ্রহ বলে। উপগ্রহ সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে, প্রাকৃতিক উপগ্রহ এবং কৃত্রিম উপগ্রহ

উপগ্রহের নিজস্ব কোনো আলো না থাকায় এরা এর নিকটতম নক্ষত্রের আলোয় আলোকিত হয়। তবে এ নিয়ম কেবল প্রাকৃতিক উপগ্রহের ক্ষেত্রেই। আমাদের পৃথিবী গ্রহের উপগ্রহ হচ্ছে চাঁদ আর তা আমাদের নিকটতম নক্ষত্র সূর্যের আলোয় আলোকিত হয়। প্রাকৃতিক উপগ্রহের পাশাপাশি পৃথিবী থেকে কৃত্রিম উপগ্রহ মহাকাশে নির্দিষ্ট কক্ষপথে স্থাপন করা হয়। এগুলো মূলত বিভিন্ন গবেষণামূলক কাজের জন্য স্থাপন কঅরা হয়। বর্তমানে প্রায় ২৫০০ কৃত্রিম উপগ্রহ পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে। 

images 28

বিভিন্ন উপগ্রহের সংখ্যা

আমাদের সৌরজগতের গ্রহগুলোর উপগ্রহের সংখ্যা ভিন্ন ভিন্ন। কোনো কোনো গ্রহের উপগ্রহ নাও থাকতে পারে। মঙ্গলগ্রহের উপগ্রহ দুইটি। যথা- ফোবোস ও ডিমোস। এমনি করে বৃহস্পতি গ্রহের উপগ্রহ সংখ্যা ৭৯টি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য উপগ্রহগুলো হচ্ছে, মেটিস (Metis), অ্যাড্রাস্টিয়া (Adrastea), অ্যামালথিয়া (Amalthea), থীবী (Thebe),  আইয়ো (Io), ইউরোপা (Europa), গ্যানিমেড (Ganymede), ক্যালিস্টো (Callisto), থেমিস্টো (Themisto), লেডা (Leda),হিমালিয়া (Himalia), লিসিথিয়া (Lysithea),এলারা (Elara), ডিয়া, কার্পো (Carpo), এস/২০০৩ জে ১২ (S/2003 J 12), ইউপোরি (Euporie), এস/২০০৩ জে ৩ (S/2003 J 3), এস/২০০৩ জে ১৮ (S/2003 J 18), থেলজিনো (Thelxinoe), ইউয়ান্থ (Euanthe), হেলিক (Helike), ওর্থোসাই (Orhtosie), লোকাস্ট (Locaste), এস/২০০৩ জে ১৬ (S/2003 J 16), প্র্যাক্সিডিক (Praxidike), হার্পালিক (Harpalyke), নেম (Mneme), হারমিপ (Hermippe), থাইয়োন (Thyone), আনাক (Anake), হার্স (Herse), অ্যাল্টন (Altne) ইত্যাদি ।

বৃহস্পতির সবচেয়ে বড় চারটি উপগ্রহ হলো আইয়ো, ইউরোপা, গ্যানিমেড এবং ক্যালিস্টো, এদেরকে গ্যালিলীয় উপগ্রহ বলা হয়ে থাকে আবিষ্কারকের নামানুসারে। এছাড়া শনি গ্রহের রয়েছে ৮২টি উপগ্রহ। উল্লেখযোগ্য উপগ্রহগুলো হচ্ছে টাইটান (বৃহৎ), রিয়া, ইয়াপেটাস, ডায়োন, টেথিস, এনসেলাডাস, মাইমাস, হাইপেরিয়ন, ফোব ইত্যাদি ।ইউরেনাসের ২৭টি উপগ্রহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে টাইটানিয়া, ওবেরন, আমব্রিয়েল, এরিয়েল, মিরান্ডা ইত্যাদি।নেপচুনের ১৪টি উপগ্রহের মধ্যে রয়েছে – ন্যায়আড (Naiad), থ্যালাসা (Thalassa‍), ডেস্পিনা (Despina), গ্যালাটিয়া (Galatea), ল্যারিসা (‍Larissa), প্রোটিয়াস (Proteus)। ট্রাইটন (Triton), নেরিড (Nereid), হেলিমিড (Helimede), স্যাও (Sao), ল্যাওমেডিয়া (Laomedia), নেসো (Nesso), স্যামাথ (Psamathe)। উপগ্রহের এ সংখ্যা নতুন উপগ্রহ আবিষ্কারের উপর ভিত্তি করে পরিবর্তনও হতে পারে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.